সিএ পড়ায় আগ্রহ বাড়াতে প্রথমবারের মতো আইসিএবি’র কুইজ প্রতিযোগিতা

0

আসাদুল্লা লায়ন-

ভিশন ২১ কে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আরো বেশি সংখ্যক শিক্ষার্থীকে সিএ পড়ায় উৎসাহী করতে প্রথমবারের মতো দি ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড একাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএবি) এর ঢাকা রিজিওনাল কমিটি (ডিআরসি) আইসিএবি’র কুইজ বিজ – ২০১৭ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে আইসিএবি’র নিজস্ব অডিটোরিয়ামে দিনব্যাপী এই কুইজ বিজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতিযোগিতায় প্রথম বিজয়ী হয় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগ। প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া এই বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীকে গোল্ড মেডেল পরিয়ে দেন আয়োজকরা। একই সঙ্গে তাদের পক্ষে বিশ্ববিদ্যলয় কর্তৃপক্ষকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। এছাড়া, প্রধান বিজয়ী দলকে নগদ পঞ্চাশ হাজার টাকার চেক ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

প্রতিযোগিতায় প্রথম রানার আপ হয় ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগ। প্রথম রানার আপকে ক্রেস্ট, সার্টিফিকেট ও পচিশ হাজার টাকার চেক প্রদান করা হয়। প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় রানার আপ হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগ। দ্বিতীয় রানার আপকে ক্রেস্ট, সার্টিফিকেট ও বিশ হাজার টাকার চেক প্রদান করা হয়।

পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তারা জানান, চার্টার্ড একাউন্ট্যান্সি (সিএ) পেশাকে সর্বস্তরে প্রচার-প্রসারের মাধ্যমে হিসাব নিরীক্ষায় সচেতনতা আনায়ন এবং বাংলাদেশে প্রয়োজনীয় সংখ্যক চার্টার্ড একাউন্ট্যান্ট তৈরিতে বেশি শিক্ষার্থী যেন সিএ পড়তে উৎসাহী হয় সে লক্ষ্যেই প্রথমবারের মতো এমন আয়োজন করা হলো।

ভবিষ্যতে আরো বড় পরিসরে এমন আয়োজন করা হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন আয়োজকরা প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের সরকারী-বেসরকারী মোট ১৩টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৬জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে আইসিএবিএর সহ-সভাপতি মো: মাহমুদ হোসেন এফসিএ, কাউন্সিল সদস্য মো: মাহমুদুল হাসান খসরু এফসিএ, ঢাকা রিজিওনাল কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আমিনুল হক এফসিএসহ ঢাকা রিজিওনাল কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ এবং আইসিএবির সদস্যবৃন্দসহ  বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের প্রায় ২০০ শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

একুশ শতকের বাংলাদেশের অর্থনীতিতে চার্টার্ড একাউন্ট্যান্টগণ ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে আরও অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে সে বিষয়ে অনুষ্ঠানে বিশদ আলোচনাও হয়। বক্তারা দেশ গড়ায় নতুন প্রজন্ম যেন তাদের যোগ্যতায় নতুন মাত্রায় নিয়ে যাওয়া যায় সে লক্ষ্যেও কাজ করার অঙ্গিকার ব্যক্ত করা হয়।

Share.

Leave A Reply

+ sixty = 66