শীতে মাইগ্রেনের ব্যথা কমানোর উপায়

0

মাথাব্যথা একটা অস্বস্তিকর ব্যাপার। বিশেষ কোন কাজেও মন বসানো কষ্টকর হয়। সবকিছুতেই  একটা বিরক্তি আসে। তাকিয়ে থাকতেও কষ্ট হয়। যাদের মাইগ্রেনের ব্যথা হয় তাদের কষ্টটা আরো মারাত্মক। অসহ্য যন্ত্রনা হয় মাথায়। অনেকে তো খিটখিটে বদমেজাজি অবধি হয়ে যান এই কারনে। শীত আসলে মাথা ব্যথা আরো বেড়ে যায়। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া নিজে থেকেও সচেতন থাকা প্রয়োজন। বিশেষ করে খাবারের প্রতি যত্নশীল হতে হবে। কিছু খাবার এড়িয়ে চললে কম হতে পারে মাইগ্রেনের ব্যথা।

 

১। আচার বা টক জাতীয় কিছু না খাওয়া
যেকোন ধরনের স্পাইসি বা ঝাল তেল মশলাযুক্ত খাবারই খাওয়া উচিত না এই সময়। কোন রকমের আচার না খাওয়া। লেবু বা এজাতীয় টক ফল এড়িয়ে চলা। টক ফলে টাইরামিন এবং হিস্টামিন থাকে যা আপনার মাইগ্রেনের ব্যথাকে বাড়িয়ে তুলতে  ইতিবাচক ভূমিকা নেয়।

২। শিম না খাওয়া
শিম জাতীয় সবজি এড়িয়ে চলা।

৩। মরিচ একদমই নয়
মরিচ দেওয়া তৈরী খাবার এড়িয়ে চলা।

৪। কলাকেও বিদায় দিতে হবে
অল্প সময়ের মধ্যে চটপট পেট ভরাতে কলার জুড়ি মেলা ভার। পাউরুটির সাথেও কলার যুগলবন্দি দারুন। কলা খুবই পুষ্টিকর খাদ্য একথা ঠিকই কিন্তু কলার মধ্যে থাকে টাইরামিন যা আপনার মাইগ্রেনের ব্যথাকে বাড়িয়ে দিতে সক্ষম। সেইজন্য এইসময় কলা কে একটু বিদায় জানান।

৫। পিজ্জা খাওয়া থেকে বিরত থাকা
পিজ্জা খাওয়া থেকে এড়িয়ে চলবেন। কারন পিজ্জায় ইস্ট থাকে আর ইস্ট মাথাব্যথার জন্য দায়ী। তাই শুধু পিজ্জা নয় যে কোন ইস্ট জাতীয় খাবারকেই বর্জন করুন।

৬। অন্যান্য
চকলেট সমৃদ্ধ পানীয় যেমন চকলেট মিল্কশেক, চকলেট দুধ এইধরনের পানীয় মাথা ব্যথা বাড়িয়ে দিতে পারে। এছাড়াও অ্যালকোহল, রেড ওয়াইন, ফুল ফ্যাট মিল্ক, পুরাতন চিজ, টক ক্রিম, সসেজ, অলিভ, অ্যাভোকাডো ইত্যাদি মাইগ্রেনের ব্যথা বাড়িয়ে দিতে পারে।

Share.

Leave A Reply

36 − = thirty two