রোমান্টিক ঘরানার বই ‘অলংকার’

0

বিকেল। পশ্চিম আকাশে কমলা রঙ্গের সূর্যটি হেলে পড়েছে। চিড়িয়া খানার ভেতরে বিভিন্ন বয়সের মানুষের পশুপাখি দর্শন ও বিচরণ একটি আনন্দঘন পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। আমিনুল ইসলাম তাঁদের মতোই একজন পশুপাখি প্রেমী। বহু মানুষের কোলাহল। কিন্তু দু’একটি কথার শব্দ ভিন্ন। বোঝা যাচ্ছে ভিনদেশী কেউ বাংলায় কথা বলতে চেষ্টা করছে।

আমিনুল পেছনের দিকে তাকিয়ে দেখলেন ২৮ কি ৩০ বছর বয়সী এক ভিনদেশী নারী। চিড়িয়া খানার বানরের সাথে খেলা করছে আর বাংলায় বলতে চেষ্টা করছে, ‘হামি বানড় বালবাসি’ মানে আমি বানর ভালোবাসি। আমিনুলের সাহিত্যিক মন তাঁর এক দেখায় ভিনদেশীকে ভালো লেগে যায়।

লেখকের ভাষায়, সেই বিদেশীর ভালোলাগার আর ভালোবাসার অনুভূতি থেকেই আজকের লেখা অলংকার। আমিনুল ইসলাম বলেন, ২০১১ সালে সদ্য এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে ঢাকায় বেড়াতে এসেছিলাম আমার খালাতো ভাইয়ের বাসায়। তাঁর নামও আমিনুল। দু’জনে মিলে কোন এক পড়ন্ত বিকালে চিড়িয়া খানায় ঘুরতে গিয়েছিলাম। সেখানে কয়েকজন ইতালিয়ানদের সাথে দেখা।  তাঁদের মাঝে দু’চোখে স্বপ্ন ঘেরা সুন্দরী এক মেয়ের সাথে দেখা। নাম ক্লডিয়া বেল্যা। যার ছদ্মনাম রোজেন। ভাঙ্গা ভাঙ্গা ইংরেজীতে তাঁর সাথে সামান্য কিছুক্ষণ কথা হয় আমার।

বইটির লেখক আমিনুল ইসলাম। জন্ম জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জ থানার মহিষ বাথান গ্রামে। বাবা মো. লাল মিয়া মন্ডল এবং মা মনোয়ারা ময়না। লেখক বলেন, অষ্টম শ্রেণিতে পড়ার সময় উপহার হিসেবে পাওয়া আমার প্রিয় লেখক হুমায়ুন আহমেদের লেখা ‘এলেবেলে’ পড়েই আমার মাঝে লেখক মন জেগে ওঠে। সেখান থেকেই ছোট ছোট লেখার হাতে খড়ি।

একজন মানুষের ভালো লাগা থেকেই সৃষ্টিশীল কর্মের উৎপত্তি। লেখক আমিনুল ইসলামের সাহিত্যিক জীবনের প্রথম বই অলংকার। এটি মূলত রোমান্টিক ঘরানার একটি ইতালিয়ান মেয়ে রোজেনের ভ্রমণ কাহিনী অবলম্বনে লেখা। রোজেন চেয়েছেন সারা পৃথিবী ঘুরে দেখতে। সেজন্য তিনি বিশ্বের নানান দেশ ভ্রমণ করে ক্ষণিকের জন্য আসেন বাংলাদেশে। এই দেশের সুজলা সুফলা শস্যের ক্ষেত, সবুজ বন এবং মন মাতানো সংস্কৃতি দেখে প্রেমে পড়ে যান রোজেন। তাঁর ভাবনায় ছিলো বাঙ্গালী কোন এক দুরন্ত প্রেমীক। যিনি ক’দিনের জন্য আসা রোজেনের মতো এক ফর্সা দেশের মেয়ের প্রেমে পড়ে চলে যাবেন সুদূর ইতালিতে। হন্য হয়ে খুঁজে বের করবেন তাঁর ভালোবাসার মানুষকে। তাই রোজেন কোন এক বনে নিজের কিছু অলংকার রেখে যান স্মৃতি হিসেবে।

যান্ত্রিক শহর ঢাকায় রোজেনের মনের মতো একজন মানুষ বসবাস করেন। নাম নিলু। পেশায় একজন চিত্রশিল্পী। তিনি ঐ বনে ঘুরতে গিয়ে রোজেনের রেখে যাওয়া ভালোবাসার স্মৃতিগুলো খুঁজে পান। তিনি মনের মাধুরী মিশিয়ে রং তুলির আঁচড়ে ফুটিয়ে তোলেন ভালোবাসার মানুষটির ছবি। সকল বাঁধা উপেক্ষা করে ভালোবাসার খোঁজে চলে যেতে চান নিলু।

‘অলংকার’ নামক বইটি প্রকাশ করেছে ‘রাবেয়া বুক হাউজ’। এবার ২০১৮ সালের অমর একুশে বই মেলায় লেখকের এ বইটি পাওয়া যাচ্ছে ‘রাবেয়া বুক হাউজ’। স্টল নং ১৫৮ তে। বইয়ের প্রচ্ছদে রয়েছে সৌন্দর্যের ছোঁয়া-একটি পড়ন্ত বিকালের লালচে আভাময় ছবি, খোলা আকাশের নিচে অদৃশ্যের দিকে তাকিয়ে আছে এক উন্মুখ নারী। প্রচ্ছদ যেন পুরো বইয়ের একটি সারাংশ। ৮৮ পৃষ্ঠার বইটির মূল্য ১৫০ টাকা।

Share.

Leave A Reply

× five = twenty