যারা এখনো সাদাকালো টিভি দেখেন

0

বর্তমান সময়ের হাই ডেফিনিশনের ফোর’কে টেকনোলজির এসব স্লিম টিভির ভিড়ে অনেকের হয়তো মনেও নেই ছোট্ট সাদাকালো টেলিভিশনের কথা। ৫৫ ইঞ্চি এবং ৭০ ইঞ্চি টেলিভিশন এখন খুব চলছে। অবাক হলেও সত্যি যে, এখনও কিছু মানুষ সাদাকালো টিভি দেখেন। তাও আবার যুক্তরাজ্যের মতো আধুনিক যায়গায়।

টেলিভিশন যেন জাদুর বাক্স, তাই বিস্ময় ও মুগ্ধতা নিয়ে সাদাকালো টিভির দিকে তাকিয়ে থাকার সেই দিনগুলো হয়তো এ প্রজন্মের অনেকেই পেয়েছেন। শৈশব-কৈশোর কেটেছে সাদাকালো টিভিতে নাটক-সিনেমা দেখে। টিভির পর্দা রঙিন হয়েছে পঞ্চাশ বছর আগে। একসময়ে ঘরে ঘরে সাদা কালো টিভি ছিল। কিন্তু এখন শহরে তো বটেই, গ্রামেও রঙিন টিভি আছে ঘরে ঘরে। স্বল্প মূল্যেই পাওয়া যায় রঙিন টেলিভিশন। যুক্তরাজ্যের টিভি লাইসেন্স এর রিপোর্ট থেকে সম্প্রতি জানা গেছে সাত হাজারের বেশী মানুষ এখনও সাদাকালো টেলিভিশনে অনুষ্ঠান দেখেন।

তারচেয়েও আশ্চর্যের খবর হলো, সাদা কালো টিভি দেখা মানুষ লন্ডনে সবচাইতে বেশী। ১৭৬৮ জন সাদা কালো টিভি দেখেন সেখানে। ওয়েস্ট মিড ল্যান্ডে ৪৩১ এবং বৃহত্তর ম্যানচেস্টারে ৩৯০ জনের আছে মনোক্রম লাইসেন্স। মোট ৭১৬১ জন মানুষ এখনও সাদাকালো টেলিভিশন দেখেন।

লন্ডন ভিত্তিক টেলিভিশন এবং রেডিও টেকনোলজির ইতিহাস বিশেষজ্ঞ জেফরে বরিনস্কাই বলেন, ‘ঐতিহ্যবাহী একটি সাদাকালো টেলিভিশন থাকলে কার পুরো দেয়াল জুড়ে লাগানো ফোরকে আলট্রা এইচডি টিভি লাগে বলুন?’

টিভি লাইসেন্সিং এর মুখপাত্র জেসন হিল জানান, ৭০০০ এর বেশী মানুষ জানিয়েছেন, তারা এখনও তাদের প্রিয় টেলিভিশন শোগুলো সাদাকালো টেলিভিশনে দেখতে ভালোবাসেন।

যুক্তরাজ্যে ১৯৬৭ সালে প্রথম রঙিন অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা শুরু হয় বিবিসিটুতে। উইমবেলডনের টেনিস টুর্নামেন্ট সম্প্রচার করা হয়েছিল সেদিন। এরপর থেকে ধীরে ধীরে সাদাকালোর লাইন্সেন্স কমতে থাকে। আশির দশকের পর দোকান থেকেও হারিয়ে যাওয়া শুরু করে সাদাকালো টেলিভিশন। ২০০০ সালে সাদাকালো টিভির লাইসেন্স এর সংখ্যা ছিল ২১২০০০টি। ২০০৩ এ কমে হয় ৯৩০০০। ২০১৫ সালে এই সংখ্যা ১০০০০ এর নিচে নেমে যায়।

সূত্রঃ সিএনএন

Share.

Leave A Reply

÷ five = one