পড়াশোনা হতে হবে জ্ঞানার্জন নির্ভর: জিনাত আমিন

0

আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জিনাত আমিন এর সাথে কথা বলেছেন নতুনকিছু.কম এর প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম নাবিল।

নতুনকিছু: শুভ সকাল ম্যাম, কেমন আছেন?

জিনাত আমিন: শুভ সকাল, ভালো আছি।

নতুনকিছু: আপনার শৈশব নিয়ে জানতে চাই।

জিনাত আমিন: পৈতৃক নিবাস কুমিল্লার মুরাদনগর। যদিও আমার বেড়ে ওঠা ঢাকাতেই। বাবা ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার। চার ভাই-বোনের মধ্যে আমি তৃতীয়। ছোটবেলা থেকেই নিয়ম-শৃঙ্খলার  মধ্য দিয়ে বেড়ে উঠেছি।

নতুনকিছু: শিক্ষা জীবন নিয়ে কিছু বলেন।

জিনাত আমিন: আমার স্কুল-কলেজ ‘ভিকারুন্নেসা নুন স্কুল এন্ড কলেজ’। আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন নিয়ে পড়াশোনা। বাবার ইচ্ছে ছিলো যেন আইনজীবী হই। ২০০৫ সালের ২৯ অক্টোবর জর্জকোর্ট থেকে অ্যাডভোকেট সনদ লাভ করি।

নতুনকিছু: কর্মজীবন কেমন কাটছে?

জিনাত আমিন: ২০০৬ সালের ৬ এপ্রিল থেকে আমার কর্মজীবনের শুরু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউডাতে শিক্ষকতা করার মধ্য দিয়ে। শিক্ষার্থীদের সাথে সংযুক্ত থাকা যায়, তাই শিক্ষকতা পেশাটার প্রতি এতটা ভালোবাসা। ২০১০ সালে স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ’র আইন বিভাগে যুক্ত হই।  আর ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে দায়িত্ব নিই বিভাগীয় প্রধান হিসেবে।

নতুনকিছু: ২০১০ সালের এসইউবি’র সাথে ২০১৮ এর এসইউবিকে কীভাবে মূল্যায়ন করবেন?

জিনাত আমিন: এখন আগের চেয়ে শিক্ষার্থীদের মান বেড়েছে। আমাদের অ্যাডমিনিস্ট্রেশন, আইটি এসবের অনেক উন্নতি হয়েছে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীর সংখ্যাও বেড়েছে। ক্লাবগুলোর কার্যক্রম এগিয়ে চলছে। আর পুঁথিগত বিদ্যা শুধু নয়, এখন তো আমাদের মাঝে মানসিক উন্নয়নের লক্ষ্যে এথিকস অ্যান্ড এস্থেটিক্স  ক্লাসও চালু আছে।

নতুনকিছু: এসইউবি’র আইন বিভাগ কোন কোন দিক থেকে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আলাদা?

জিনাত আমিন: আইন বিভাগে এখন দুইটি ক্লাব পরিচালিত হচ্ছে। স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ ‘ল’ ডিবেটিং সোসাইটি এবং স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ মুটকোর্ট সোসাইটি অন্যতম। ২০১৭ সালে আমাদের মুটকোর্ট প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। পরপর ৪ টি জাতীয় প্রতিযোগিতায় আমরা কোয়ার্টার ফাইনাল, সেমিফাইনাল ও ফাইনালে উত্তীর্ণ হওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করি। এখানকার সিলেবাস অনেক আপডেটেড। এখানে ‘ফরেনসিক -ল অ্যান্ড  সাইন্টিফিক এভিডেন্স’ ও  ‘সাইভার-ল’ এর মতো বিষয়গুলোও পড়ানো হয়।

নতুনকিছু: এসইউবিকে নিয়ে আপনার স্বপ্ন কি?

জিনাত আমিন: আমি চাই আমাদের অ্যালামনাইবৃন্দ যেন আরো ফিট হয়। অ্যালামনাইদের ভালো অবস্থানে দেখাই আমার চাওয়া। আইন বিভাগ ও এসইউবি’র পরিচিতি যেন চারদিকে ছড়িয়ে যায়। আর এ বিশ্ববিদ্যালয়টি যেন দেশে অপ্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরিত  হয় সেটাই স্বপ্ন ও চাওয়া।

নতুনকিছু: শিক্ষার্থীদের উদ্দ্যেশ্যে কিছু বলুন।

জিনাত আমিন: শিক্ষার্থীদের উদ্দ্যেশ্যে বলবো, তোমরা শুধু জিপিএ নির্ভর পড়াশোনা না করে জ্ঞানার্জনের জন্য পড়াশোনা করবে। বইয়ের সাথে যেন যোগাযোগ থাকে। আইন বিভাগের শিক্ষার্থীদের উদ্দ্যেশ্যে বলবো, সমসাময়িক রাজনৈতিক পরিবর্তন সম্পর্কে আপডেট থাকতে হবে। আইনজীবীদের বলা হয় সোশ্যাল ইঞ্জিনিয়ার। সূতরাং নিয়মিত অবশ্যই পত্রিকা পড়তে হবে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে তোমাদের দিতে হবে আরো বুদ্ধিমত্তার পরিচয়।

নতুনকিছু: ম্যাম, গেলো ৪ ফেব্রুয়ারি আপনার জন্মদিন উদযাপিত হলো। আমাদের নতুনকিছু.কম পরিবারের পক্ষ থেকে আপনাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা।

জিনাত আমিন: নতুনকিছু.কম পরিবারকেও অনেক ধন্যবাদ।

Share.

Leave A Reply

45 − 44 =