পূজার বাহারি পদ “পটলের দোলমা”

0

সাদা কাশফুলের মাধ্যমেই পাওয়া যায় পূজার আভাস। মেঘ- বৃষ্টির লুকোচুরির মধ্যেই কাশফুলে ছেয়ে গেছে বন-বাদার। আকাশে বাতাসে পুজো পুজো সুরভি। বাঙালির সেরা উৎসব সবার মনেই এনেছে আনন্দের জোয়ার।

দেবীর আরাধনার সঙ্গে থাকে এলাহী খাওয়াদাওয়া। সকলেই নিজেদের সাধ্যমত করেন বাহারি পদের আয়োজন।
বাঙ্গালী রান্নায় আলাদা জায়গা করে আছে পটল। পটল খেয়ে একঘেয়েমি লাগার কোন সুযোগই নেই। কারণ পটল কে রোজ নানা স্বাদের পদে ব্যবহার করা যায়। তেমনি এক পদ “পটলের দোলমা”।

পটলের দোলমার রেসিপিঃ
উপকরণঃ
পটল: ১ কেজি
চিকেন কিমা: ১৫০ গ্রাম
চিংড়ি:(খোসা ছাড়িয়ে পরিষ্কার করা): ২০০ গ্রাম
চন্দ্রমুখি আলু: ১ টা(সেদ্ধ করে চটকে রাখা)
পিঁয়াজ বাটা: ৩ বড় চামচ
রসুন বাটা: ২ চামচ
আদা বাটা: ৩ চামচ
নারকেল কোরা: ২ চামচ
কাঁচা লঙ্কা ও ক্যাপসিকাম কুঁচি: ২ চামচ করে
পিঁয়াজ কুঁচি: ৪ চামচ
জিরে গুঁড়ো:১ চামচ
গরম মশলা গুঁড়ো: ১ চামচ,
সাদা তেল: চার চামচ,
নুন , চিনি: স্বাদ অনুযায়ী
ঘি: ১ চামচ
গোটা গরম মশলা: অল্প
শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো – ১ চামচ
হলুদ গুঁড়ো – ১ চামচ
ফেটানো দই- ২ চামচ
ধনে পাতা
প্রণালীঃ
বড় ও টাটকা পটলের গা চেঁচে নিয়ে ভিতর থেকে দানা বার করে সামান্য তেলে অল্প করে ভেজে রাখুন, যাতে সবুজ রং নষ্ট না হয়। এবার কড়াইতে তেল দিয়ে চিকেন কিমা, আলু দিয়ে নেড়েচেড়ে রসুন ও আদা বাটা দিয়ে কষে নিন। এবার মরিচগুড়ো, কাঁচা মরিচ কুঁচি ও জিরেগুঁড়ো দিন। এরপর এর মধ্যে চিংড়ি ও ক্যাপসিকাম কুঁচি দিয়ে নেড়েচেড়ে লবন-মিষ্টি দিন। এর মধ্যে নারকেল কোরা, ঘি ও গরম মশলা দিয়ে পুর বানিয়ে নিন।

এবার পটলের মধ্যে পুর ভরে রাখুন। প্যানে তেল দিয়ে গোটা গরম মশলা ফোড়ন দিয়ে পিঁয়াজ কুঁচি হালকা বাদামি করে ভেজে নিয়ে বাকি আদা ও রসুন বাটা এবং মরিচগুঁড়ো, হলুদ গুঁড়ো দিয়ে ভাল করে কষাতে হবে। লবন চিনি দিয়ে তেল ছাড়া পর্যন্ত কষে নিয়ে এক কাপ গরম জল ঢেলে দিন। ফুটে উঠলে পটল গুলো ধীরে ধীরে ছেড়ে দিন। এপিঠ ও পিঠ করে সেদ্ধ হয়ে এলে ঘি ও গরম মশলা দিয়ে নামিয়ে নিন। ফেটানো দই ছড়িয়েও পরিবেশন করতে পারেন।

Share.

Leave A Reply

+ 28 = thirty five