নতুন প্রযুক্তির টয়লেটে থাকবে না পানির ব্যবস্থা

0

নতুনকিছু ডেস্ক-

এগিয়ে যাচ্ছে মানুষ, আর সেই সাথে তাল মিলিয়ে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে প্রযুক্তি। মানুষ তার নিজের প্রয়োজনে,যুগের সাথে তাল মিলিয়ে তৈরি করছে বিভিন্ন নতুন নতুন প্রযুক্তি, যা রীতি মতো মানুষকে তাক লাগিয়ে দিচ্ছে। আর এবার তৈরি হয়েছে এমন এক নতুন প্রযুক্তির টয়লেট, যেখানে কোনও পানির ব্যবস্থা থাকবে না, থাকবে না কোনো পয়-নিষ্কাশন ব্যবস্থাও।

সম্প্রতি মার্কিন বিলিয়নিয়ার বিল গেটস নতুন এই টয়লেট প্রযুক্তির উন্মোচন করেছেন। সচরাচর আমরা যে টয়লেট ব্যবহার করি, সেখানে পানির ব্যবহার করতে হয়, তারপর টয়লেটে ফ্লাস করার পর পানির মাধ্যমে আবর্জনাগুলো পাইপের মধ্যে দিয়ে গিয়ে কোনও নর্দমায় বা সংরক্ষনাগারে গিয়ে জমা হয়।

কিন্তু  বিলগেটস এর নতুন এই টয়লেট প্রযুক্তিতে কোনো পানির ব্যবহার থাকবে না বা কোনও পাইপের ব্যবহারও থাকবে না।  রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,  ‘টয়লেটের নতুন এই প্রযুক্তিটি বিভিন্ন রাসায়নিক উপাদান ব্যবহার করে মানব বর্জ্যকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে সারে রূপান্তর করবে। এটা টয়লেটের ভেতরেই প্রক্রিয়াজাত হয়ে যাবে। ফলে কোন পাইপে করে কোথাও ফেলার ব্যবস্থা করতে হবে না।’

অত্যাধুনিক টয়লেট প্রযুক্তি উম্মোচন অনুষ্ঠানে বিল গেটস বলেন, ‘নতুন ধরণের টয়লেটে একটি রাসায়নিক প্রক্রিয়া ব্যবহার করা হবে। এর মাধ্যমে মানুষের মল থেকে দুর্গন্ধ এবং ক্ষতিকর প্যাথোজেনগুলো দূরীভূত হবে। বাকি থাকবে ছাইয়ের মতো একটা জিনিস। এটাই সার হিসেবে ব্যবহার করা যাবে।’

অত্যাধুনিক এই টয়লেট প্রযুক্তির বেশ কয়েকটি ধরণ থাকলেও তাদের প্রত্যেকটিই কাজ করবে তরল ও কঠিন বর্জ আলাদা করার মাধ্যমে। দীর্ঘদিন ধরেই নতুন প্রযুক্তির টয়লেট নিয়ে কাজ করছিল বিল এন্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন। কিছুদিন আগে এক সাক্ষাৎকারে গেটস জানান, ‘অত্যাধুনিক টয়লেট বাজারে আসার জন্য প্রস্তুত। খুব শিগগিরই বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে এটা ছড়িয়ে পড়বে বলেও আশা করা হচ্ছে।’

 

Share.

Leave A Reply

seventy four − sixty seven =