ডেইলি স্টারের পঠন প্রতিযোগিতায় পুরস্কার পেল স্টেট ইউনিভার্সিটির সাব্বির হাসান

0

সংবাদ ডেস্ক।। 

দি ডেইলি স্টার পত্রিকার সম্পাদক মাহাফুজ আনাম বলেছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সংবাদ সমূহ সবসময় সত্য হয় না, পক্ষান্তরে সংবাদপত্রের সংবাদ সমূহ গ্রহণযোগ্য হয়।

গতকাল ৫ই মার্চ ডেইলি স্টার এর কার্যালয়ে পঠন প্রতিযোগিতা-২০১৮ ” এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি  কথা বলেন। দি ডেইলি স্টার পত্রিকার নানান ধরনের শিক্ষামূলক কার্যক্রম পরিচালনার অংশ হিসেবে প্রসিদ্ধ বিশ্ববিদ্যালয় সমূহে ‘পঠন প্রতিযোগিতা’-২০১৮ আয়োজন করা হয়েছিল।

তিনি বলেন, একজন ভাল মানুষ হওয়ার পাশাপাশি নিজেকে গড়ে তুলতে হবে দক্ষ মানুষ হিসেবে। সংযোগ স্থাপন করতে হবে বিশ্বের সাথে। নিজেকে একজন গ্লোবাল সিটিজেন হিসেবে ভাবতে হবে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সংবাদ সমূহ সবসময় সত্য হয় না পক্ষান্তরে সংবাদপত্রের সংবাদ সমূহ হয় গ্রহণযোগ্য। নিয়মিত পত্রিকা পড়ার মাধ্যমে মেধার উন্মেষ ঘটে আর এটা হবে তোমাদের এগিয়ে যাওয়ার হাতিয়ার।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে গ্রীন ইউনিভার্সিটি,স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি,ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অলটারনেটিভ এবং ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক।

উক্ত অনুষ্ঠানে চ্যাম্পিয়ন ৫ জনের হাতে সম্মাননা স্মারক ক্রেস্ট তুলে দেওয়া হয়। চ্যাম্পিয়ন ৫ জন হচ্ছেন,গ্রীন ইউনিভার্সিটির মুহতাসিন ফুয়াদ,স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ এর মো সাব্বির হাসান, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মো: মোরসালিন আকাশ, ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অলটারনেটিভ এর রেজাউল করীম এবং ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের ইমামুম মুত্তাকিন।

এ সময় গ্রীন ইউনিভার্সিটি হতে চ্যাম্পিয়ন হওয়া শিক্ষার্থী মুহতাসিন ফুয়াদ নতুনকিছু.কম কে জানান তার অনুভূতির কথা।তিনি বলেন,” ভাল লাগছে, এ প্রতিযোগিতার ফলে ইংরেজি ভীতি কিছুটা হলেও দূরীভূত হয়েছে ।আর এমনিতেই পড়তে ভালবাসি এবং গ্রীন ইউনিভার্সিটির রিডিং ক্লাবের সদস্য হিসেবেও যুক্ত আছি।”

আরেক চ্যাম্পিয়ন স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ এর শিক্ষার্থী মো সাব্বির হাসান জানান, তিনি একাধারে বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটিং ক্লাব ও ইএমকে ল্যাংগুয়েজ সেন্টারের সদস্য হিসেবে আছেন।নিয়মিত পত্রিকা পড়লে শব্দের ভান্ডার যেমন সমৃদ্ধ হয় তেমনি বাক্যগঠন ও শুদ্ধ হয় বলে মতামত দেন তিনি।

অনুষ্ঠানে  গ্রীন ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সিরাজাম মুনিরা বলেন,ক্লাস শুরুর প্রথম ১০ মিনিটে আমরা শিক্ষার্থীদের সংবাদপত্র হতে প্রাপ্তজ্ঞান ক্লাসে শেয়ার করার জন্য বলে থাকি।

এছাড়াও স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ  এর কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষক সাজ্জাদ উদ্দিন মাহামুদ  বলেন,”বর্তমান সময়ে আমরা প্রযুক্তি সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের দিকে বেশি ঝুঁকেছি কিন্তু দি ডেইলি স্টারের প্রতিযোগিতাটিকে ঘিরে অনেক শিক্ষার্থী সংবাদপত্রের সাথে সংযোগ স্থাপনের মাধ্যমে পড়াশুনার সুযোগ পেয়েছে।”

উক্ত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে দি ডেইলি স্টার পত্রিকার সম্পাদক মাহাফুজ আনাম, স্টেট ইউনিভার্সিটির সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক রিফাত সুলতানা, সাহস মোস্তাফিজসহ সংশ্লিষ্ট ৫ টি বিশ্ববিদ্যালয় হতে আগত শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Share.

Leave A Reply

× 9 = fifty four