জাতিসংঘ গঠনে গুরুত্বপূর্ণ সাত পদক্ষেপ

0

সিনথিয়া করিম- 

বিশ্বের সর্বোচ্চ আন্তর্জাতিক সংস্থা হল জাতিসংঘ, যার অপরনাম রাষ্ট্রসংঘ। ১ জানুয়ারি ১৯৪২ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্কলিন ডি রুজভেল্ট জাতিসংঘ গঠনের প্রস্তাব করেন। ‘জাতিসংঘ’ নামটিও তিনি প্রস্তাব করেন। আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তাই ছিল জাতিসংঘ গঠনের মূল উদ্দেশ্য। ১৯৪৫ সালে এই উদ্দেশ্য নিয়ে ৫১ টি রাষ্ট্র জাতিসংঘ সনদ স্বাক্ষরের  মাধ্যমে  জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠিত হয়। বর্তমানে জাতিসংঘের  সদস্য রাষ্ট্রের সংখ্যা ১৯৩ টি।

জাতিসংঘ গঠনের ইতিহাস :

সর্বমোট গুরুত্বপূর্ণ সাতটি পদক্ষেপের মধ্যদিয়ে তৈরি হয় জাতিসংঘ। জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠার প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে ১২ জুন ১৯৪১ সালে ইউরোপের ৯টি দেশের সরকার পৃথিবীতে শান্তি ও নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠার জন্য লন্ডনের জেমস প্রাসাদে  ঘোষণা দেন, যা লন্ডন  ঘোষণা নামে পরিচিত।

পরবর্তী সময়ে ১৪ আগস্ট, ১৯৪৩ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট রুজভেল্ট এবং ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল আটলান্টিক মহাসাগরে ব্রিটিশ নৌতরী প্রিনসেস অব ওয়েলস এবং ইঊএসএস অগ্যাস্টাসে  মিলিত হন ও বিশ্ব শান্তি ও নিরাপত্তার ঘোষণা দেন, যা আটলান্টিক সনদ নামে পরিচিত।

তৃতীয় পদক্ষেপ হিসেবে ১৯৪৩ সালে মস্কো সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা বিশ্ব শান্তি ও নিরাপত্তা বিধানের জন্য ৭ দফা ঘোষণা করেন।

১৯৪৩ সালের ১ ডিসেম্বর, মার্কিন প্রেসিডেন্ট রুজভেল্ট, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী চার্চিল এবং সোভিয়েত প্রেসিডেন্ট স্তালিন তেহরানে একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন গড়ে তোলার জন্য সকল দেশকে সদস্য হওয়ার জন্য আহ্বান জানান।

পঞ্চম পদক্ষেপ হিসাবে ১৯৪৪ সালে ওয়াশিংটনের ডাম্বারসন ওকস ভবনে জাতিসংঘের রূপরেখা, নিরাপত্তা ও নামকরণের উদ্দেশ্যে  যুক্তরাষ্ট্র , যুক্তরাজ্য, সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন এবং চীন সম্মেলনে মিলিত হন।

পরবর্তীকালে ১৯৪৫ সালে ইউক্রেনের ইয়ালটায় ডাম্বারটন সম্মেলনের অবশিষ্ট কাজ সম্পাদন করা হয়।

সপ্তম এবং শেষ পদক্ষেপ হিসেবে ১৯৪৫ সালে ৫১ টি দেশ ১১১ টি ধারা  সংবলিত জাতিসংঘ সনদে স্বাক্ষর করেন। ১৯৪৫ সালের ২৪ অক্টোবর থেকে এটি কার্যকর হয়। প্রতিবছর ২৪ অক্টোবর জাতিসংঘ দিবস পালিত হয়।

Share.

Leave A Reply

sixty five + = 74