চোরের তালিকায় নাম লেখালেন পাকিস্তানি সচিব!

0

পাকিস্তানের অর্থ মন্ত্রণালয় ভবনের ভেতরে কুয়েতি প্রতিনিধির মানিব্যাগ চুরি করে ধরা পড়লেন পাকিস্তানি এক আমলা।

ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরায় ধারণকৃত চুরির সেই ছয় সেকেন্ডের ভিডিওটি এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। শনিবার এ ঘটনা ফাঁস হতেই আমলাদের কীর্তিকলাপ নিয়ে হাসি-ঠাট্টা শুরু হয়েছে দেশটির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতেও।

কুয়েতের এ প্রতিনিধি দলটি পাকিস্তানের বিনিয়োগ সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করতে এসেছিলেন। শুক্রবার ওই বৈঠকের মধ্যেই নিজের মানিব্যাগ হারিয়ে ফেলেন এক প্রতিনিধি। সরকারিভাবে তা নিয়ে অভিযোগও দায়ের করেন তিনি। এর পরই কড়া অনুসন্ধানে নামে পাকিস্তান সরকার।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের বৈঠক চলাকালীন সেখানে উপস্থিত নিচুতলার সব কর্মীকে জেরা করার পাশাপাশি শারীরিকভাবে তল্লাশি চালানো হয়। কিন্তু মানিব্যাগের কোনো খোঁজ মেলেনি। তখন খতিয়ে দেখা হয় ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার ফুটেজ। এর পরই সামনে আসে কেলেঙ্কারির ছবি।

অভিযুক্ত ব্যক্তি পাকিস্তান অর্থ মন্ত্রণালয়ের গ্রেড-২০ পর্যায়ের সচিব জারার হায়দর খান। ভিডিওতে ওই পাকিস্তানি আমলাকে টেবিলের ওপর পড়ে থাকা মানিব্যাগটি তুলে চুপি চুপি পকেটে ঢুকিয়ে নিতে দেখা যাচ্ছে। যদিও তিনি প্রথমে চুরির কথা স্বীকার করেননি। কিন্তু ভিডিও ফুটেজ দেখানোর পর তিনি মানিব্যাগটি ফেরত দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

পাকিস্তানি পত্রিকা ডনের খবরে বলা হয়েছে, কুয়েতি প্রতিনিধি দলটি অভিযোগ করে, তাদের একজনের মানিব্যাগ হারিয়ে গেছে। তাতে বহুমূল্যের কুয়েতি দিনার ছিল। এ অভিযোগ পাওয়ার পর অর্থ মন্ত্রণালয়ের পুরো ভবন খোঁজা হয়। নিচু পদবীর কর্মকর্তাদের দেহ তল্লাশি করা হয়। কিন্তু কোথাও পাওয়া যায়নি ওই ওয়ালেট।

শেষ অবলম্বন হিসেবে মনে পড়ে সিসিটিভির কথা। তখন কর্মকর্তারা লেগে পড়েন সিসিটিভির পেছনে। সেখানে ওই আমলাকে দেখা যায় ওয়ালেটটা পকেটস্থ করছেন। তার কাছ থেকে পরে উদ্ধার করা হয় তা।

মন্ত্রণালয়ের কড়া পাহারায় মানিব্যাগ হারিয়ে যাওয়ার খবরে ক্ষোভ বাড়তে থাকে কুয়েতি প্রতিনিধি দলে। তাদেরকে অভিযুক্ত ব্যক্তির পরিচয় গোপন রাখতে অনুরোধ করা হয়। তাদেরকে নিশ্চয়তা দেয়া হয়, অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Share.

Leave A Reply

forty seven + = fifty five