ঘুরে আসুন সাজেক ভ্যালী

0

নতুন কিছু ডেস্ক-

আপনি যদি প্রকৃতি প্রেমিক হন এবং প্রকৃতির অপরূপ দৃশ্য উপভোগ করতে চান তাহলে ‘সাজেক ভ্যালী’ হবে আপনার জন্য একটি আদর্শ জায়গা।  ভ্রমণ পিপাসু মানুষের জন্য একটি আদর্শ স্থান সাজেক ভ্যালী, যেটি রাঙামাটি জেলায় অবস্থিত।

আমরা বিভিন্ন দেশের গ্রীন ভ্যালী দেখতে যাওয়ার স্বপ্ন দেখি বা অনেকে বেড়িয়েও এসেছি। কিন্তু আমাদের নিজের দেশেই আছে  এমন একটি গ্রীন ভ্যলী যার সৌন্দর্য  আপনাকে করবে অভিভূত ।

ঢাকা থেকে মাত্র ৭/৮ ঘণ্টা দূরত্বেই আছে এমন গ্রীন ভ্যালী ,’সাজেক ভ্যালী’। রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলায় অবস্থিত এটি , যার আয়তন ৭০২ বর্গমাইল। সাজেক জেলায় অবস্থিত হলেও  এর যাতায়াত সুবিধা খাগড়াছড়ির দীঘিনালা থেকে। খাগড়াছড়ি জেলা সদর থেকে  এর দূরত্ব ৭০ কিলোমিটার। আর দীঘিনালা থেকে ৪৯ কিলোমিটার এবং বাঘাইহাট থেকে ৩৪ কিলোমিটার।

Image result for সাজেক ভেলি

খাগড়াছড়ি থেকে দীঘিনালা আর্মি ক্যাম্প হয়ে যেতে হয়। পরে পড়বে ১০ নং বাঘাইহাট পুলিশ ও আর্মি ক্যাম্প , যেখান থেকে আপনাকে সাজেক যাওয়ার মূল অনুমতি নিতে হবে। তারপর কাসালং ব্রীজ । কাসালং নদীটি ২টি নদী মিলে হয়েছে। পরে  পড়বে টাইগার টিলা আর্মি পোস্ট ও মাসালং বাজার। বাজার পার করলেই পড়বে  সাজেকের প্রথম গ্রাম রুইলুই পাড়া , যার  উচ্চতা ১৮০০ ফুট।

রুইলুই পাড়া থেকে অল্প সময়ের মধ্যে পৌছে যাবেন সাজেক। সাজেকের বিজিবি ক্যাম্প  বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বিজিবি ক্যাম্প। এখানে হেলিপ্যাড আছে। সাজেকের শেষ গ্রাম কংলক যেটি ।  এখান থেকে ভারতের লুসাই পাহাড় দেখা যায়, যেখান থেকে কর্নফুলি নদীর উৎপত্তি।

সাজেক বিজিবি এর পর আর কোনো ক্যাম্প না থাকায় নিরাপত্তার কারণে  মাঝে মাঝে কংলকে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয় না। ফেরার সময় হাজাছড়া ঝর্ণা, দীঘিনালা ঝুলন্ত ব্রীজ ও দীঘিনালা বন বিহার দেখে আসতে পারেন। তবে একদিনে এই সবগুলি দেখতে হলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বেরিয়ে পড়া ভালো।

খাগড়াছড়ির সিস্টেম রেস্তোরায় খাবার খেতে পারেন , যেখানে  রয়েছে ঐতিহ্যবাহী খাবারের সমারহ।

খাগড়াছড়ি থেকে জীপগাড়ি ( লোকাল নাম ‘চান্দের গাড়ি) রিজার্ভ করে একদিনে সাজেক ভ্যালী ঘুরে আসতে পারেন। ভাড়া নিবে ৫০০০-৬০০০ টাকা।লোক কম হলে শহর থেকে সিএনজি ভাড়া করে নিতে পারেন , ভাড়া ৩০০০ এর মত নিবে। এছাড়া খাগড়াছড়ি থেকে দীঘিনালা দিয়ে সাজেক যেতে পারেন। বাসে জন প্রতি ৪৫ টাকা ভাড়া নিবে এবং মটর বাইকে জনপ্রতি ১০০ টাকা ভাড়া নিবে। দীঘিনালা থেকে ১০০০-১২০০ টাকায় মটর বাইক রিজার্ভ করেও ঘুরে আসতে পারেন সাদেক।

Related image

 

ফেরার সময় আপনাকে অবশ্যই বিজিবি ক্যাম্প পার হইয়ে আসতে হবে , না হলে  অনেক প্রশ্নের সম্মুখিন হতে হবে। তবে ক্যাম্পে ছবি তোলা নিষেধ এই ব্যপারটি অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে।

খাগড়াছড়িতে পর্যটন মোটেল সহ বিভিন্ন মানের থাকার হোটেল আছে। দীঘিনালায় কয়েকটি হোটেল থাকলেও এখানকার গেস্টহাউজের মান কিছুটা ভালো।

তাই আর বেশি দেরি না করে হাতে ২-৩ দিন সময় নিয়ে ঘুরেও আসতে পারেন ‘সাজেক ভ্যালী’।

Share.

Leave A Reply

÷ 8 = one