‘এই বাসটি আমার জীবন বাঁচিয়েছে’

0

পাকিস্তানের একজন সাধারণ নারী আসিয়া। তবে সাধারণের মাঝেও কিছু অসাধারণ কাজ করে দেখিয়েছে তিনি। নারী-পুরুষ বৈষম্যের অবসান ঘটিয়ে নিজে চালানো শুরু করেন মাইক্রো বাস। পাকিস্তানে খুব সহজ নয় একজন নারী হয়ে চালক হিসেবে অর্থ উপার্যন করা। পরিবারে অর্থিক যোগানদাতা কেউ নেই আসিয়ার। বিয়ে হয়েছিল ১৫ বছর বয়েসে। তবে ৬ বছর পরেই স্বামী চলে গিয়েছে না ফেরার দেশে।

সাধারণত পাকিস্তানে বিধবা নারীদের খুব স্বাভাবিক ভাবে গণ্য করা হয় না। তবে একটি মাইক্রো ফাইন্যান্স প্রকল্প তাকে সাহায্য করেছিল। সাথে তাঁর এক ভাই কিছু টাকা ধার দেন। এই অর্থ দিয়ে একটি বাস কেনেন আসিয়া।

প্রায় ৩৫ বছর ধরে এই মাইক্রোবাসটি চালিয়ে আয় করছেন আসিয়া। নারী চালক থাকার কারণে অনেক পিতা মাতা তাঁদের মেয়ে সন্তানদের নিশ্চিন্তে আসিয়ার মাইক্রো বাসে স্কুলে পাঠান।

পৃথিবীতে প্রায় ২৫৮.৫ মিলিওন স্বামী হারা নারী রয়েছে। যাদের অনেকেই রয়েছে দারিদ্র সীমার নিচে। ‘এই বাসটি আমার জীবন বাঁচিয়েছে। আমি সকল বিধবাদের প্রতি বলতে চাই এই পৃথিবীতে কারো উপর নির্ভরশীল হওয়া উচিৎ না। নিজের কাজটুকু করতে হবে নিজেকেই। নিজের স্থান তৈরি করতে হবে এবং নিজের পায়ে দাড়াতে হবে। ‘ বলেন সংগ্রামী আসিয়া।

Share.

Leave A Reply

eighty seven + = 89