উড়ে বেড়ায় যে কাঠবেড়ালি

0

কাঠবেড়ালি  নামটির সাথে আমরা সবাই খুব পরিচিত। বিভিন্ন গাছের ডালে কত কাঠবেড়ালি দেখে থাকি আমরা। খুব চঞ্চল স্বভাবের বিড়াল প্রজাতির এই প্রাণীটি সারদিন  ফুড়ুৎ ফুড়ুৎ করে ঘুরে বেড়ায় এখানে সেখানে। এরা গাছে বাস করে। কাঠবেড়ালির লেজ তার শরীরের চেয়ে বড় এবং লোমশ হয়। বিড়াল প্রজাতির হলেও দেখতে এরা বিড়াল থেকে পুরোপুরি আলাদা।

এই প্রাণীটিকে এখানে সেখানে দৌড়াতে, এ গাছ থেকে ও গাছে চাঞ্চল্যের সাথে ঘুরে বেড়াতে দেখেনি এমন মানুষের  স্যংখা খুব কমই আছে। কিন্তু কাঠবেড়ালিকে  উড়তে দেখেছেন কখনো?

হ্যাঁ, এমন উড়ন্ত কাঠবেড়ালির অস্তিত্ব কিন্তু বাস্তবেই আছে। কিছু কাঠবেড়ালি আছে যারা বাতাসে ভাসতে পারে। আর এ ক্ষমতা তারা এ গাছ থেকে ও গাছে যাবার জন্য ব্যবহার করে। এ জন্য কাঠবেড়ালিরা কোনও গাছের উঁচু ডাল থেকে লাফিয়ে পড়ে তারপর শূন্যে ভাসতে থাকে। পানিতে নৌকার যেমন দিক ঠিক করা হয় হালের সাহায্যে, তেমনি কাঠবেড়ালিরা তাদের মোটা লোমশ লেজটাকে হালের মতোই ব্যবহার করে।

বাতাসে ভেসে থাকার সময় দিক ঠিক করার কাজে লাগায় লেজকে। এভাবে কিছুদূর গিয়ে কাঠবেড়ালি কাছের যে কোনও স্থানে নেমে আসে। আর এ সময় কাঠবেড়ালির পায়ের নিচের নরম মাংসপিণ্ড তাকে সাহায্য করে নির্বিঘ্নে নেমে আসতে।

এসব কাঠবেড়ালির উড়ার সুবিধার জন্য হাতের চামড়া বৃদ্ধি পেয়ে ডানার সৃষ্টি হয়েছে। এক গাছ থেকে অন্য গাছে উড়ে যাওয়ার সময় এরা এই রূপান্তরিত ডানা মেলে ধরে। তবে এদের দেখতে সাধারণ কাঠবেড়ালিদের থেকে খুব বেশি আলাদা নয়।

Share.

Leave A Reply

96 ÷ = sixteen