আমাদের নষ্ট রাজনীতি আমাদের মনকে সংকীর্ণ করে রেখেছে

0

নতুন কিছু ডেস্ক।। 

কার্ল মার্কসের ২০০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুজাফফর আহমেদ চৌধুরী মিলনায়তনে শনিবার (৫ মে) দিনব্যাপী আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে বাংলার পাঠশালা ফাউন্ডেশন।

‘বাংলাদেশের সংকট উত্তরণে কার্ল মার্কসের প্রাসঙ্গিকতা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট লেখক ও সাংবাদিক কামাল লোহানী। বিশেষ অতিথি ছিলেন মানবাধিকারকর্মী এবং রাজনীতিবিদ সুলতানা কামাল ও রাজনীতিবিদ ড. নূহ-উল-আলম লেনিন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অজয় রায়, সহ-আহ্বায়ক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. এম এম আকাশ এবং বিশ্ববিদ্যালয়টির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস।

অনুষ্ঠানে বিষয় ভিত্তিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড. সাজ্জাদ জহির, ইকোনমিক রিসার্চ গ্রুপ-ইআরজি, অধ্যাপক মনিরুল ইসলাম খান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, অধ্যাপক হারুন রশীদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ড. মেঘনা গুহঠাকুরতা, (রিইব), অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

সভাপতির বক্তব্যে কামাল লোহানী বলেন, মুক্তিযুদ্ধ মূলত ৯ মাসে শেষ হয় নি, বরং এর আনুষ্ঠানিকতা ৯ মাসে শেষ হয়েছে। এটি শুরু হয়েছিলো অনেক আগে এবং মুক্তির আন্দোলন চলছে আজও। আমরা নিজেদের মার্কসবাদী মনে করি, কিন্তু মার্কসবাদকে লালন করি না। লালনের জন্য বড় মনের প্রয়োজন। আমাদের নষ্ট রাজনীতি আমাদের মনকে সংকীর্ণ করে রেখেছে।

এম এম আকাশ বলেন, কার্ল মার্কসের প্রধান লক্ষ্য ছিল একটি সাম্যবাদী আলোকিত রাষ্ট্র গঠন করা। দেশের আগামী নির্বাচনে মনে হয় না সেই সাম্যবাদ পরিপূর্ণরূপে উপস্থিত থাকবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশের আমলাতান্ত্রীক জটিলতার জন্য অনেক মহৎ কর্মও নষ্ট হয়, আমরা চাই সকল আমলাতান্ত্রীকতার অবসান হোক।

রোবায়েত ফেরদৌস বলেন, পরিমাণের চেয়ে পরিপক্কতা এবং মানের প্রয়োজন বেশি। সকল মানুষকে দল, মত ভেদে সমান ভাবাই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। জ্ঞানের শক্তি একাই হাজার জনের সমান। কার্ল মার্কস সত্য জ্ঞান বিতরণ করেছিলেন এবং তা আজও চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে।

অনুষ্ঠানটির সার্বিক তত্বাবধান ও পরিচালনায়   ছিলেন বাংলার পাঠশালা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা আহমেদ জাভেদ।

Share.

Leave A Reply

sixty two + = sixty six