আবারো পরীক্ষায় বসছেন ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা

0

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ১৮ হাজার ৪৬৩ জন শিক্ষার্থী আবারও পরীক্ষায় বসছেন বলে নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান। গতকাল মঙ্গলবার ডিনস কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

‘ঘ’ ইউনিটে ৯৫ হাজার ৩৪১ জন আবেদন করলেও পরীক্ষা দেয় ৭০ হাজার ৪৪০ জন। এর মধ্যে ন্যূনতম ৪৮ পাওয়া শিক্ষার্থীদের ভর্তির যোগ্য বলে বিবেচনা করা হয়। এই বিবেচনায় ভর্তির যোগ্য হচ্ছে ১৮ হাজার ৪৬৪ জন তথা ২৬.২১ শতাংশ শিক্ষার্থী। শুধু তারাই ফের পরীক্ষা দিতে পারবে। এর আগেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ উঠেছিল। তবে নজিরবিহীনভাবে এই প্রথম কর্তৃপক্ষ নতুন করে পরীক্ষা নিতে রাজি হলো।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এ পরীক্ষায় সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক সাদেকা হালিম মূল সমন্বয়কারী এবং জীববিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ইমদাদুল হক ও কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন যুগ্ম সমন্বয়কারী হিসেবে থাকবেন। আজ এক সভায় তারিখ ঠিক হতে পারে। সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা হয় ১২ অক্টোবর। তবে পরীক্ষার আগেই প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ ওঠে। ফল প্রকাশের পর একজন পরীক্ষার্থীর অস্বাভাবিক নম্বর সন্দেহকে আরও শক্ত অবস্থানে নিয়ে যায়।

প্রশাসন প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি অস্বীকার করলেও তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) অভিযান চালিয়ে ছয়জনকে আটক এবং তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে। এরই মধ্যে কর্তৃপক্ষ ফল প্রকাশ করে দিলে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের ফলে অসামঞ্জস্য ধরা পড়ে। এর পরেই বিভিন্ন ছাত্রসংগঠনের ব্যানারে শিক্ষার্থীরা পুনরায় পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ করতে থাকে।

একপর্যায়ে আমরণ অনশনে বসেন আইন বিভাগের শিক্ষার্থী আখতার হোসেন। এ অবস্থায় প্রাথমিক তদন্ত কমিটির সুপারিশে প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনার মূল সত্য উদ্ঘাটনে পাঁচ সদস্যের ‘নিবিড় তদন্ত কমিটি’ গঠন করে কর্তৃপক্ষ।

Share.

Leave A Reply

3 × two =